আগামি নির্বাচনে ৩০টি আসন চায় পূজা উদযাপন পরিষদ

অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। ১৯৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন করে এদেশে ধর্মীয় উগ্রবাদকে ছড়িয়ে দেয়া হয়, স্বাধীনতার চেতনাকে ধ্বংস করা হয়। বর্তমানে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাসী জোট সরকার রাষ্ট্র পরিচালনা করছে বিধায় সকল ধর্মে মানুষের সম অধিকার নিশ্চিত করা গেছে। একাদশ নির্বাচনে সারা বাংলাদেশে পূজা উদযাপন পরিষদ ৩শত আসনের মধ্য ৩০টি আসন চায়। বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ, বিএনপির পরেই হিন্দুবোদ্ধ ঐক্য পরিষদের অবস্থান। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় সম অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নাটোরে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১১টায় শুরু হয় রাণী ভবানী রাজবাড়ী চত্বরে দিনব্যাপী এই সভায় নাটোর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও পৌর মেয়র উমা চোধুরী জলি সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ-১ (নিয়ামতপুর-পোরশা ও সাপাহার) সংসদ সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার, জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন, পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত, সাধারণ সম্পাদক নির্মল চ্যাটার্জি ও যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক চন্দন পোদ্দার । এছাড়াও নাটোর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সম্পাদক সহ রাজশাহী বিভাগের আটটি জেলার পূজা উদযাপন পরিষদ প্রতিনিধি বক্তব্য রাখেন। সভার শুরুতে জাতীয় সংগীত পরিবেশন এবং জাতীয় পতাকা ও পূজা উদযাপন পরিষদের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।