আ.লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে

কুড়িগ্রামে আ.লীগের দু’গ্রুপের উত্তেজনা; পুলিশের লাঠিচার্জ

কুড়িগ্রাম ২ ডিসেম্বর : কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বাষিক সম্মেলনে একটি গ্র”পকে প্রবেশ করতে না দেয়াকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও টিয়ার শেল নিেেপর ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্ততঃ ১০জন আহত হয়েছে।

শনিবার বিকেলে রাজারহাট উপজেলা শহরের সোনালী ব্যাংক চত্বরে সম্মেলন বর্জনকারী গ্র”পটি অবস্থান নিলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশের সাথে নেতা কর্মীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এক পর্যায়ে নেতা কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাটি চার্জ সহ কয়েক রাউন্ড টিয়ার শেল নিপে করে পুলিশ।

পুলিশ ও দুই গ্র”পের নেতা কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, রাজারহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের দুই গ্র”পের সম্মেলনকে কেন্দ্রকরে বিবাদমান দুটি গ্র”প প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে পাল্টাপাল্টি কমিটি গঠন করে। শনিবার সকালে রাজারহাট কারিগরি বানিজ্যিক কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আবুনুর মোঃ আক্তার”জ্জামানের গ্র”প সম্মেলনের আয়োজন করে।

সেখানে কুড়িগ্রাম আওয়ামীলীগের জেলা নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে রাজারহাট উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদ সোহরাওয়ার্দী বাপ্পী ও উপজেলা সভাপতি আব্দুস ছালাম চাষী গ্র”প নেতা কর্মীদের নিয়ে সম্মেলনে অংশ নিতে গেলে সংঘর্ষের আশংকায় তাদেরকে প্রবেশে বাঁধা দেয় পুলিশ। পরে চাষী আব্দুস ছালাম ও উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদ সোহরাওয়ার্দি বাপ্পী গ্র”পের নেতা কর্মীরা উপজেলা শহরে সোনালী ব্যাংক চত্বরে অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে। পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে গেলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের আগে কারিগরি বাণিজ্যিক কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় মোঃ শাহের আলীকে সভাপতি ও আবু নুর মোহাম্মদ আখতার”জ্জামান সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করে কমিটি গঠন করা হয়।

অন্যদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি গ্র”ত বিকেলে উপজেলা শহরের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সম্মেলনের মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামীলীগের পাল্টা কমিটি গঠন করতে গেলে সেখানে গিয়ে নেতাকর্মীদের ওপর লাঠি চার্জ করে সম্মেলন পন্ড করে দেয় পুলিশ।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।