করোনা ভাইরাস

লাখ ছাড়িয়ে আক্রান্ত; বাড়ছে ভীতি

ভোরের বার্তা, ঢাকা ১৯ জুন ২০২০ : ”দেশের মানুষের কাছে এখন বড় আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ”। ”এর মধ্যে লাখ ছাড়িয়েছে সংক্রমণের সংখ্যা”। ”এ পরিস্থিতি থেকে কবে মিলবে পরিত্রাণ, তা জানা নেই কারোরই”। ”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ মনে করছেন, এ পরিস্থিতি দীর্ঘায়িত হতে পারে আরো দুই-তিন বছর বা তারও বেশি সময়”।

”করোনায় সংক্রমিত হয়েছিলেন ডা. আবুল কালাম আজাদ নিজেও”। ”আক্রান্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি”। ”কিছুদিন হলো সুস্থ হয়ে পুনরায় কাজে যোগ দিয়েছেন তিনি”। ”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে যুক্ত হয়ে গতকাল তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের অভিজ্ঞতা বলছে, ভাইরাসটির প্রভাব এক, দুই বা তিন মাসের মধ্যেই শেষ হবে না”। ”এটি দুই-তিন বছর বা তার চেয়েও বেশিদিন স্থায়ী হতে পারে”। ”যদিও সংক্রমণের মাত্রা উচ্চহারে নাও থাকতে পারে”।

”এদিকে দেশে কভিড-১৯-এ আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্তের সংখ্যা লাখ অতিক্রম করেছে গতকাল”। ”একই সঙ্গে কানাডাকে টপকে বৈশ্বিক সংক্রমণের তালিকায় ১৭তম স্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ”। ”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গতকালের অনলাইন বুলেটিনে তুলে ধরা তথ্যমতে, গতকাল পর্যন্ত দেশে ভাইরাসটিতে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে মোট ১ লাখ ২ হাজার ২৯২ জনে”।

”আগের দিন এ তালিকায় ১৮তম অবস্থানে থেকে কানাডাকে ছুঁই ছুঁই করছিল বাংলাদেশ”। ”উত্তর আমেরিকার দেশটিও লাখের ঘর অতিক্রম করেছে গতকাল”। ”তবে সংক্রমণ বৃদ্ধির হার বেশি হওয়ায় কানাডাকে টপকে ১৭তম স্থানে উঠে আসে বাংলাদেশ”।

”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনলাইন হেলথ বুলেটিন চলাকালে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কভিড-১৯-এ আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৮০৩ জনের। এর মধ্য দিয়ে দেশে রোগটিতে আক্রান্ত হিসেবে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১ লাখ ২ হাজার ২৯২”। ”সংক্রমিতদের মধ্যে গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩৮ জনের”। ”এর মধ্য দিয়ে দেশে মহামারীতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১ হাজার ৩৪৩”।

”কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে ওঠা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ নিজেও এদিন বুলেটিনে যুক্ত ছিলেন”। ”তিনি বলেন, নভেল করোনাভাইরাসের এ সংকট দুই থেকে তিন বছরও চলতে পারে”।

”বুলেটিনে জানানো হয়, গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৫৯টি ল্যাবে মোট ১৬ হাজার ২৫৯টি পরীক্ষা হয়েছে”। ”এ পর্যন্ত পরীক্ষা করা হয়েছে ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৫০৩টি নমুনা”। ”নমুনা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ২৯ শতাংশ”। ”অন্যদিকে শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৩৯ দশমিক ২৬ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ”।

”গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের তথ্য বিশ্লেষণ করে নাসিমা সুলতানা বলেন, মৃত ৩৮ জনের মধ্যে একজন শিশু রয়েছে, যার বয়স দশের কম”।

”এছাড়া ২১-৩০ বছর বয়সসীমার মধ্যে দুজন, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে পাঁচ, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে তিন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ছয়, ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ১৪, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে পাঁচজন ও ৮১-৯০ বছর বয়সসীমার মধ্যে দুজন রয়েছেন”। ”মৃতদের মধ্যে পুরুষ ও নারী যথাক্রমে ৩১ ও সাতজন”।

”এখনো কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হারের দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে ঢাকা বিভাগ”। ”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, বিভাগওয়ারি হিসাবে এদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ১৪ জন, চট্টগ্রামের ১৮, খুলনার দুই এবং রাজশাহী, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও রংপুর বিভাগের একজন করে রয়েছেন”।

”নাসিমা সুলতানা জানান, গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে আরো ১ হাজার ৯৭৫ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন”। ”এ নিয়ে মোট সুস্থ হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়াল ৪০ হাজার ১৬৪”। ”শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৩৯ দশমিক ২৬ শতাংশ”।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।