বিপদের দিকে যাচ্ছে সংক্রমণ পরিস্থিতি

ভোরের বার্তা, ঢাকা ২১ জুন ২০২০ : ”বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এখন আরো বিপজ্জনক দিকে মোড় নিচ্ছে। বিশ্বব্যাপী গত দুই দিনে প্রতিদিন গড়ে দেড় লাখেরও বেশি মানুষ ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন”। ”এ অবস্থায় পরিস্থিতি বর্তমানে আরো বিপজ্জনক দিকে মোড় নিচ্ছে বলে গতকাল হুঁশিয়ারি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)”।

”বিভিন্ন পরিসংখ্যানেও ডব্লিউএইচওর এ হুঁশিয়ারির প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে”। ”ক্রমেই কোটির কাছাকাছি ঘনিয়ে আসছে বিশ্বব্যাপী সংক্রমণ শনাক্তের সংখ্যা”। ”জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গতকাল রাত ১১টা পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী মোট সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৮৭ লাখ ৩ হাজার ২৪ জনের”। ”এর মধ্যে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৮ হাজার ৭৭৫ জনের সংক্রমণ নিশ্চিত হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে”।

”বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে বিশ্লেষণে ডব্লিউএইচও বলছে, বর্তমানে নতুন যত সংক্রমণ শনাক্ত হচ্ছে তার সিংহভাগই উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকায়”। ”এছাড়া দক্ষিণ এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যেও নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখন বেশ দ্রুত গতিতে ছড়াচ্ছে”।

”সংক্রমণ শনাক্তের দিক থেকে বর্তমানে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে তিনটি দেশ শীর্ষ বিশের তালিকায় অবস্থান করছে”। ”এর মধ্যে চতুর্থ অবস্থানে থাকা ভারতে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে চার লাখের কাছাকাছি সংখ্যক মানুষের”। ”ত্রয়োদশ অবস্থানে পাকিস্তানে এ সংখ্যা ১ লাখ ৭১ হাজারের বেশি”। ”১ লাখ ৮ হাজার ৭৭৫  জনের সংক্রমণ নিশ্চিতের মাধ্যমে তালিকায় ১৭তম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ”।

”বাংলাদেশের সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে স্থানীয় পরিসংখ্যানেও বিশ্বব্যাপী কভিড-১৯-এর প্রাদুর্ভাব জোরালো হয়ে ওঠার প্রবণতার প্রতিফলন স্পষ্ট”। ”গতকালও সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ২৪০ জন নতুন সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর”। ”যদিও এ সময় নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আগের কয়েকদিনের চেয়ে কিছুটা কম”।

”স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে জানানো হয়, গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ৩১টি”। ”এর বিপরীতে শনাক্তের হার ২৩ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ”।

”দেশে কভিড-১৯-এর প্রাদুর্ভাবের প্রধান ভরকেন্দ্র ঢাকা”। ”দেশের দুই তৃতীয়াংশ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ঢাকা বিভাগে”। ”স্বাভাবিকভাবেই এখানে মৃত্যুর সংখ্যাও অনেক বেশি”। ”তবে গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকার চেয়ে মৃত্যুসংখ্যা বেশি ছিল চট্টগ্রাম বিভাগে”।

”গতকাল সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩৭ জনের”। ”এর মধ্যে অন্যান্য দিন ঢাকা বিভাগে মৃত্যু সংখ্যা বেশি হলেও গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন চট্টগ্রাম বিভাগে”। ”মৃত ৩৭ জনের মধ্যে ১৩ জনই চট্টগ্রাম বিভাগের”। ”এছাড়া এ ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগের ১০ জন, রাজশাহীর পাঁচ, খুলনার দুই, বরিশালের দুই, ময়মনসিংহের চার ও রংপুর বিভাগের একজন বাসিন্দা নভেল করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা গিয়েছেন”। ”সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪২৫-এ”।

”চট্টগ্রাম বিভাগে শনাক্তকৃত রোগীর হারও বর্তমানে ঊর্ধ্বমুখী হয়ে উঠেছে”। ”এক মাসের ব্যবধানে সংক্রমণ হারে সবচেয়ে বেশি উলম্ফন দেখা গিয়েছে এখানেই”। ”গত ১৫ মের হিসাব অনুযায়ী, ওই সময় দেশে মোট শনাক্তকৃত রোগীর ৮ দশমিক ৪৭ শতাংশ ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের”। ”বর্তমানে এ হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে মোট আক্রান্তের ১৭ দশমিক ৫৭ শতাংশে”।

”বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গতকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৮ জন”। ”এ নিয়ে দেশে আক্রান্তের পর সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৩ হাজার ৯৯৩ জনে”। ”সুস্থ হওয়ার হার ৪০ দশমিক ৪৪ শতাংশ”।

”অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, এ ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৭ জনের মধ্যে ২৯ জন পুরুষ, আট জন নারী”। ”এর মধ্যে একজনের জনের বয়স ছিল শতাধিক”। ”ছয়জনের বয়স ছিল ৭১-৮০ বছরের মধ্যে”। ”এছাড়া ৬১-৭০ বছর বয়সসীমার মধ্যে সাত জন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ১৩, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে পাঁচ, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে দুই, ২১-৩০ বছরের মধ্যে দুই ও ১১-২০ বছর বয়সসীমার মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে”।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।