ঋণের টাকার চাপে গৃহবধূর আত্মহত্যা (ভিডিও)

টাঙ্গাইল ২৩ জুলাই ২০২০ : টাঙ্গাইলে সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় সুদ ব্যবসায়ীর হুমকিতে গৃহবধূ গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে নিহতের পরিবার অভিযোগ তুলেছে। পুলিশ নিহত গৃহবধূ সান্তার লাশ উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। বুধবার পৌর এলাকার পশ্চিম আকুর টাকুর পাড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত সান্তা ওই এলাকার ভাড়াটিয়া আলমগীর হোসেনের স্ত্রী। এ ঘটনায় সিআইডি’র টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
নিহতের স্বামী আলমগীর হোসেন জানান, পারিবারিক সমস্যার কারণে গত প্রায় এক বছর পূর্বে টাঙ্গাইল পৌর এলাকার ছবুর মিয়ার ছেলে সোনা মিয়ার কাছ থেকে শতকরা ১০ টাকা হারে ৪০ হাজার টাকা ঋন নেয় নিহত গৃহবধু সান্তা বেগম। ঋন নেয়ার পর থেকে নিয়োমিত সুদের টাকা পরিশোধ করলেও গত চার মাস যাবৎ মহামারী করোনা ভাইরাসে বেকার হয়ে পরে দিন মুজুর স্বামী আলমগীর হোসেন। সংসারের অভাব অনটন থাকায় গত চার মাস যাবৎ তারা সুদের টাকা পরিশোধ করতে পারেনি। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার সুদের ব্যবসায়ী সোনা মিয়ার স্ত্রী বাসায় এসে টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করেছে। ঘটনার দিন (২২ জুলাই) সকালে পূনরায় আবারও সোনা মিয়ার স্ত্রী বাড়িতে এসে নিহত গৃহবধুকে আজ দিনের মধ্যেই টাকা পরিশোধ করতে চাপ প্রয়োগ করে এবং তাকে অপমান করে। টাকা পরিশোধ এবং অপমান সইতে না পেরে এর কিছুক্ষন পরেই গৃহবধু কাউকে কিছু না বলে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ করে স্বজনরা। এঘটনায় অভিযুক্ত সোনা মিয়ার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করেছেন নিহতের পরিবার ও এলাকাবাসী।
অভিযুক্ত সোনা মিয়া বলেন, আমি ওই গৃহবধুর কাছে কোন টাকা পাই না। আমি তাদের বাড়িতেও যাইনি। তাকে কোন টাকার চাপও দেইনি। তবে সোনা মিয়ার স্ত্রী ৪০ হাজার টাকা তাদের সুদে দিয়েছে। সে টাকার জন্য সকালে নিহতের বাড়িতে যায় বলে স্বীকার করেন।
এ ঘটনায় টাঙ্গাইলের সিআইডি’র এসআই প্রীতেশ তালুকদার বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে নিহত সান্তা বেগম আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে ঘটনার মুল তথ্য জানা যাবে।
ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

 

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।