হাসপাতাল ছাড়লেন ইউএনও ওয়াহিদা

ভোরের বার্তা ১ অক্টোবর ২০২০ : ‘সন্ত্রাসী হামলায় গুরুতর আহত দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের সাবেক উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম অনেকটাই সেরে ওঠেছেন’।

‘বৃহস্পতিবার ওয়াহিদা খানমকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড হাসপাতাল থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মিরপুরের পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্রে বা সেন্টার ফর দ্য রিহ্যাবিলিটেশন অব দ্য প্যারালাইজড (সিআরপি)’।

‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক জাহিদ হোসেন জানান, ওয়াহিদা খানম এখন নিজে হাঁটাচলা, খাওয়া ও পড়ালেখা করতে পারেন। তিনি প্রায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। তবে তার কিছু থেরাপির দরকার আছে। সেজন্য তবে আমরা চাই, তিনি সিআরপিতে (পক্ষাঘাতগ্রস্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্র বা সেন্টার ফর দ্য রিহ্যাবিলিটেশন অব দ্য প্যারালাইজড) আরও কিছুদিন চিকিৎসা নিন। আগামীকাল আমরা তাকে পরবর্তী সময়ে সিআরপিতে থেরাপির জন্য পরামর্শ দেব’।

‘গত ২ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা ইউএনওর সরকারি বাসায় ঢুকে ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবা ওমর আলীকে (৭০) হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়’।

‘ওয়াহিদা খানম ৩১ তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা। তার স্বামী মেসবাউল হোসেনও একই ব্যাচে একই ক্যাডারের কর্মকর্তা’।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।