হারানো গৌরব ফিরে পেতে চায় পাকিস্তান

হারানো গৌরব ফিরে পেতে চায় পাকিস্তানক্রীড়া ডেস্ক : দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে টি-২০ ক্রিকেটে নিজেদের ভাগ্য বদলাতে চায় পাকিস্তান। আগামীকাল লাহোরে শুরু হচ্ছে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ। সর্বশেষ আটটি টি-২০ সিরিজে মাত্র একটিতে জয় পেয়েছে পাকিস্তান। একমাত্র ওই জয়টি এসেছে র‍্যাংকিংয়ের নীচের সারির দল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। এখন সংক্ষিপ্ত ভার্সনের ক্রিকেটে ধারাবাহিক জয়ের ধারায় ফিরতে চায় পাকিস্তান। যেমনটি ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৮ সালের নভেম্বরে ছিল। ওই সময় টানা ১১টি সিরিজে জয়লাভ করেছিল পাকিস্তান। যার মাধ্যমে তারা বিশ্ব র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠেছিল।

গত সোমবার রাওয়ালপিন্ডিতে টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ৯৫ রানের জয় পাওয়ার পর পাকিস্তানিদের প্রত্যাশা অনেক উঁচুতে উঠে গেছে। ২-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজ নিশ্চিত করে স্বাগতিক পাকিস্তান। ২০০৩ সালের পর প্রোটিয়াদের বিপক্ষে এটি ছিল তাদের প্রথম সিরিজ জয়। নিয়মিত অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক,ফাফ ডু-প্লেসিস, রাসি ফন ডার ডুসেন, কাগিসো রাবাদা ও লুঙ্গি এনগিডিকে ছাড়া মাঠে নামছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। দ্বিতীয় টেস্ট শেষে অস্ট্রেলিয়া সফরের প্রস্তুতির জন্য দেশে ফিরে গেছেন তারা। তবে দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনারভাইরাসের সংক্রমন গুরুতর রূপ নেয়ায় সফরসূচিটি বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া।

তারপরও দক্ষিন আফ্রিকাকে হাল্কাভাবে নিতে চান না পাকিস্তানের বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিস। তিনি বলেন, তারা শক্তিশালী দল। সফল সমাপ্তির জন্য আমাদের ইতিবাচক ক্রিকেট খেলতে হবে। আবুধাবীর টি-১০ ক্রিকেটের অংশ নেয়ায় সিনিয়র ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ হাফিজকে পাচ্ছে না পাকিস্তান। সম্প্রতি দুর্দান্ত ফর্ম পার করছেন তিনি। গত বছর ১০ ম্যাচে ৮৩.০০ গড়ে ১৫২.৫৭ স্ট্রাইক রেটে তার সংগ্রহ ৪১৫ রান। যা ছিল ওই বছর যে কোন খেলোয়াড়ের তুলনায় সেরা।

টি-২০ সিরিজে প্রোটিয়া দলের নেতৃত্ব দিবেন উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান হেনরিখ ক্লাসেন। তার আশা,পাওয়া সুযোগ নবীনরা কাজে লাগাতে সক্ষম হবে। প্রোটিয়া অধিনায়ক বলেন, বেশ কিছু মেধাবীকে পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটে মাত্র ছয়টি ফ্র্যাঞ্চাইজি থাকায় তারা নিজেদের প্রকাশ করার সুযোগ থেকে বেশীরভাগ সময় বঞ্চিত ছিল। তার মানে এই নয় যে আমাদের টি-২০ দলটি দ্বিতীয় সারির। আমরা জয় পাবার অপেক্ষায় আছি। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ এর সংক্রমন থেকে ক্লাসেনও মুক্তি পেয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, আমি এখন নিরাপদ ও ফিট। আমি আবারো ক্রিকেট খেলতে পারব। গত তিন সপ্তাহ আমি দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুশীল এবং কঠোর প্রশিক্ষনের সুযোগ পেয়েছি। এখন আমি সঠিক ছন্দ ফিরে পেয়েছি। সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচও অনুষ্ঠিত হবে লাহোরে আগামী শনি ও রবিবার।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।