আসকের প্রতিনিধিকে পিটিয়ে নির্যাতিতকে অপহরণ স্বামীর

মাগুরার আদালত থেকে জামিন নিয়ে ঢাকায় ফেরার পথে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) হেফাজতে থাকা এক নারীকে অস্ত্রের মুখে বাস থেকে অপহরণ করেছে নির্যাতনকারী স্বামী। এ সময় দুর্বৃত্তদের মারপিটে গুরুতর আহত হয়েছেন আসকের এক নারীকর্মী।

বুধবার বিকেলে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাগুরা সদর উপজেলা লক্ষ্মীকন্দর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত নারীকর্মী শামছুন্নাহারকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শামছুন্নাহার জানান, মাগুরা শহরের পূর্বপাড়ার বাসিন্দা রকিবুল ইসলাম রিপুর সপ্তম স্ত্রী ফারজানা আক্তার রানী স্বামীর নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে এ বছরের শুরুর দিকে স্বামীর বাড়ি থেকে পালান। গত ৪ মার্চ তিনি ঢাকার লালমাটিয়ায় আসকের শেল্টার হোমে আশ্রয় নেন। ইতিমধ্যে মাগুরা সদর থানায় ফারজানার বিরুদ্ধে চুরি ও ব্যভিচারের মামলা করেন তার স্বামী। ওই থানার পুলিশ ৬ মার্চ ফারজানাকে শেল্টার হোম থেকে মাগুরায় নিয়ে আসে। আসকের প্রতিনিধি ও জিম্মাদার হিসেবে শামসুন্নাহারও মাগুরা আসেন ফারজানার সঙ্গে। আজ দুপুরে ফারজানাকে আদালতে হাজির করা হয়। তিনি আইনজীবীর মাধ্যমে ফারজানার জামিন আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন। ফারজানার ইচ্ছানুযায়ী আদালত ফারজানকে আসকের কেন্দ্রে জিম্মায় জামিন দেয়।

জামিন লাভের পর পুলিশ হেফাজতে তারা বিকেল সাড়ে চারটায় মাগুরা বাস টার্মিনাল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ঈগল পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। পথিমধ্যে সদরের লক্ষ্মীকন্দর এলাকায় একটি মাইক্রোবাস পথ রোধ করে বাসটি থামায়। এ সময় রিপুর নেতৃত্বে ৪-৫ জনের একটি সশস্ত্র দল বাসের ভেতরে ঢুকে শামসুন্নাহার ও ফারজানাকে মারপিট করে টেনেহিঁচড়ে বাস থেকে নামিয়ে ফারজানাকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

সদর থানার ওসি তদন্ত মাহবুব আল হাসান জানান, পুলিশ অপহৃতকে উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।