খাগড়াছড়িতে পুলিশের সঙ্গে ইউপিডিএফের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা

খাগড়াছড়িতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে খাগড়াছড়ি সদর থানায় ইউপিডিএফ সহযোগী সংগঠনের ১৪ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত ১২০ নেতাকর্মীকে আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করে।

মামলায় গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরাসহ ইউপিডিএফ এবং সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের আসামি করা হয়েছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তারেক আব্দুল হান্নান জানান, পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার (৭ মার্চ) সকাল পৌনে ১০টার জেলা সদরের স্বনির্ভর এলাকায় পার্বত্য চুক্তিবিরোধী সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) ইউপিডিএফর প্রসীত গ্রুপের নেতাকর্মীদের বের হওয়া লাঠি মিছিলে পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষে পাচ পুলিশসহ অন্তত ১৪ জন আহত হয়। এ সময় পুলিশ ২০ রাউন্ড টিয়াশেল ও ৫৬ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ইউপিডিএফ কর্মীরা পাল্টা গুলতি ও ইটপাটকেল ছোড়ে। সংঘর্ষ চলাকালে ইউপিডিএফ কর্মীদের ছোড়া গুলতি ও ইটের আঘাতে এসআই সাব্বীর হোসেন, সৈনিক সজীব বড়ুয়া, মোহাম্মদ আলীসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়।

অপরদিকে ইউপিডিএফের সংগঠক মাইকেল চাকমার অভিযোগ নিরাপত্তা বাহিনীর টিয়ারশেল ও রাবার বুলেটে তাদের নয় কর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় আতঙ্কে স্বনির্ভর বাজারের দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।