একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

জনসমর্থনে এগিয়ে ইঞ্জি. লিয়াকত আলী

বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থার পর্যবেক্ষন, সংবাদ সংস্থা ও মাঠ পর্যায়ের জরিপে তৃনমূল থেকে শুরু করে জনসেভায় জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের সদস্য, কালিহাতী উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, বাংলাদেশ আ’লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য, টাঙ্গাইল-৪, (কালিহাতী) আসনের আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী, ইঞ্জিনিয়ার মো: লিয়াকত আলী।

এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে বিপুল জনসমর্থন নিয়ে জোড়ালোভাবে মাঠে নেমেছেন তিনি। এলাকায় দীর্ঘদিন থেকে নিয়মিত সভা সমাবেশ ও গনসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। তার নির্বাচনী এলাকায় গাভী, ভ্যান গাড়ী, শেলাইমেশিনসহ বিভিন্ন ভাবে বেকারত্ব দুর করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন এছাড়া নদীতে ভেঙে যাওয়া বসতবাড়ীর জন্য এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের নগত অর্থ প্রদান, মসজিদ, মাদ্রাসা,স্কুল-কলেজে অর্থ দিয়ে সহযোগিতা এবং এলাকার জনগনের সেবা করার উদ্দেশ্যে তিনি বিভিন্ন সভা, সমাবেশ, ক্রীড়া-সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগদানের মধ্যদিয়ে কালিহাতীতে নিজের অবস্থান তুলে ধরেছেন জোড়ালোভাবে এবং তার নির্বাচনী এলাকায় হয়ে উঠেছেন ব্যাপক জনপ্রিয়।

উল্লেখ্য, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোতে প্রার্থী বাছাই নিয়ে আলোচনা চলছে পুরোদমে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে মাঠপর্যায়ে তোড়জোড় শুরু করেছে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। আর দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন আগামী জাতীয় নির্বাচনে অপেক্ষাকৃত জনবান্ধব, ত্যাগী, এলাকার সাধারণ জনগনের কাছে গ্রহণ যোগ্য এমন আওয়ামীলীগের কর্মী বান্ধব ক্লিন ইমেজ নেতাদের মনোনয়ন দেয়া হবে। একাধিক গুণসমৃদ্ধ প্রার্থীরা এবার মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে থাকবেন। এর মধ্যে যে নেতা বেশি জনসম্পৃক্ত ও কর্মীবান্ধব, তাকেই বেছে নেওয়া হবে।’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নিরবে জনকল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন এমন নেতাকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হবে। পেশিশক্তি নেতাকর্মী থেকে বিচ্ছিন্ন ও অবৈধভাবে অর্জিত অর্থবিত্তের অধিকারীরা আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাবেন না। ক্ষমতাসীন দল থেকে মনোনয়ন পেতে হলে প্রার্থীকে অবশ্যই জন-সম্পৃক্ত হতে হবে। একইসঙ্গে মনোনয়ন-প্রত্যাশীকে হতে হবে শিক্ষিত-মার্জিত। থাকতে হবে ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তাও।

তৃনমূলের জরিপ অনুসন্ধ্যানে স¤প্রতি টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের ১৩ টি ইউনিয়ন ও ২ টি পৌরসভা ঘুরে স্থানীয় জন প্রতিনিধি এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, যে কয়টি গুণের কথা দলীয় হাইকমান্ড থেকে বলা হয়েছে তার সবকটি গুন সমৃদ্ধ হলেন, ইঞ্জিনিয়ার মো: লিয়াকত আলী।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন বলেন ইঞ্জি. লিয়াকত আলী একজন ভাল মানুষ। মসজিদ,মাদ্রসা.স্কুল সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সহযোগিতা করেন। দল থেকে তাকে যদি মনোনয়ন দেওয়া হয় আমরা তার পক্ষে কাজ করবো। সল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম বলেন ইঞ্জি. লিয়াকত ্একজন ভাল মানুষ। গরীব অসহায় মানুষকে আর্থিক এবং বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে এলাকায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। দল থেকে তাকে যদি মনোনয়ন দেওয়া হয় আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে তার পক্ষে কাজ করবো। নাঘবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাছুদুর রহমান মিল্টন সিদ্দিকী বলেন ইঞ্জি. লিয়য়াকত আলী সাহেব আমার এলাকায় প্রায় সব মসজিদ,মাদ্রাসায় আর্থিক সহযোগিতা করেছেন।

এছাড়াও উপজেলার প্রায় সব এলাকায় মসজিদ,মাদ্র্রাসা এবং গরীব অসহায় মানুষকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে ব্যাবক জনপ্রিয়তা লাভ করেছেন। তিনি যদি দল থেকে মনোনয়ন পান আমরা সবাই তার পক্ষে কাজ করবো এবং তিনি বিপুল ভোটে বিজয় হবেন ইনশাল্লাহ। এলেঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আনিছুর রহমান মোল্লা বলেন ইঞ্জি.লিয়াকত আলী সৎ,শিক্ষিত,ভাল মানষ। এলাকায় তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা আছে। সল্লা ১নং ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান বলেন ইঞ্জি.লিয়কত আলী ব্যক্তি হিসেবে ভাল ভাল। দল থেকে যাকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে তাকেই বিজয়ী করবো।

এলেঙ্গা পৌরসভার রৌহা গ্রামের কৃষক মো. মুছা বলেন, ইঞ্জি. লিয়াকত আলী একজন ভাল মানুষ, তিনি আমাদের মসজিদ মাদ্রাসায় আর্থিক সহযোগিতা করেছেন। সবার কাছে শুনি উনি ভালো কাজ করতেছে, সে যদি ভোটে দাঁড়ায় আমরা সবাই তাকে নির্বাচিত করবো। ফুলতলা গ্রামের মুদী দোকানদার মো. সোহেল রানা বলেন, আমাদের গ্রামের মসজিদ মাদ্রাসার উন্নয়নের জন্য আর্থিক সহযোগিতা করেছেন, তাকে আমরা খুব ভাল জানি, তাকে আমরা ভোট দিবো। কচুটি গ্রামের ভ্যান চালক মোহাম্মদ আলী বলেন, লোকমুখে শুনি সে (ইঞ্জি. লিয়াকত আলী) খুব ভাল মানুষ, গরীব দুঃখী মানুষের সহযোগিতা করে থাকেন।

ইছাপুর গ্রামের আয়মনা বেগম বলেন, আমার মেয়ের বিয়েতে আর্থিক সহযোগিতা করেছিলেন, আবার শুনলাম এলেকার মাসজিদ মদ্রাসায়ও নাকি আর্থিক সহযোগিতা করেছেন। লোকমুখে শুনি তিনি অনেক উধার মনের মানুষ, আমরা এমনি একজন ভালো মানুষকে নির্বাচিত করতে চাই।

ইঞ্জি: মো: লিয়াকত আলীর গণসংযোগে উৎফুল্লিত হয়ে উঠেছে পুরো কালিহাতীবাসী। এলাকার সবশ্রেণী পেশার মানুষকে সাথে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষ্যে ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নে সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করতে সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা এবং মাদকমুক্ত,শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার পক্ষে জনমত সৃষ্টি করছেন তিনি। সর্বোপরি কালিহাতীকে দারিদ্রমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত করে মানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছেন তিনি।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।