নিজস্ব সংস্কৃতি লালনে সংগঠন গুলোকেই অগ্রনী ভুমিকা নিতে হবে-গোলাম মোস্তফা

ভালুকা প্রতিনিধি ঃ

ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ গোলাম মোস্তফা বলেছেন, আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্যে লালিত নিজস্ব কৃষ্টি ও সংস্কৃতি আজ বিলুপ্ত প্রায়। এর রক্ষনাবেক্ষনে প্রতিটি সাংস্কৃতিক সংগঠনকে উদ্যোগী হয়ে এগিয়ে আসতে হবে। সংস্কৃতি বিমুখ জাতি বেশী দুর যেতে পারে না।

ময়মনসিংহে লোকজ সংস্কৃতির সমৃদ্ধ ভান্ডার রয়েছে যা নতুন প্রজন্ম আজ ভুলে যেতে বসেছে। তিনি বলেন নব অন্য বিষয় ধার করা গেলেও নিজের শেকড়কে ভুলে গিয়ে অন্যের সংস্কৃতি ধার করে কোন জাতি চলতে পারেনা। গোলাম মোস্তফা আরো বলেন,বিজাতীয় সংস্কৃতি যেন আমাদের আগ্রাসন করতে না পারে সে জন্য সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি অভিভাবকদের উদ্যেশ্যে বলেন,আপনার সন্তানকে ধ্যানে জ্ঞানে সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলুন সংস্কৃতি কর্মকান্ডে উৎসাহিত করুন যেন সে কোন কারনে পা পিছলে না যায়। জাতীয় প্রতিটি গুরুত্বপুর্ন সময়ে সাংস্কৃতি কর্মীরাই সমাজ সচেতনায় এগিয়ে এসেছে।

ভালুকায় সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডকে আরো বিকশিত করতে এ অঙ্গনের কর্মীদের উদ্যোমী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এ জন্য উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে।

আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা শুক্রবার সন্ধায় শহীদ নাজিম উদ্দিন রোডস্থ সৃষ্টি শিল্পকলা একাডেমি কার্যালয়ে ভালুকা সুরবীণা সাংস্কৃতিক সংস্থা ও সৃষ্টি শিল্পকলা একাডেমি যৌথ আয়োজনে গীতি নাট্য ’মহুয়া’র শুভ মহরত উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখতে গিয়ে উপরোক্ত কথা বলেন।

সুরবীণা সাংস্কৃতিক সংস্থা’র নির্বাহী পরিচালক সাংবাদিক মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিকের সভাপতিত্বে ও সৃষ্টি শিল্পকলা একাডেমির নির্বাহী পরিচালক সাংবাদিক এসএম জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ সদস্য মোঃ মোন্তাজ উদ্দিন মোন্তা (ময়মনসিংহ সদর)।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নৃত্য প্রশিক্ষক সোহানুর রহমান আরজু,লোক সঙ্গীত শিল্পী রঙ্গের বাউল ফেরদৌস বয়াতি,তৃপ্তি রানী পাল, সাংবাদিক মমিনুল ইসলাম, সাংবাদিক ওমর ফারুক টিটু, সাংস্কৃতিক সংগঠক জিল্লুর রহমান জাহিদ, শরিফা আক্তার, শিল্পী ফাউজিয়া তাবাসসুম ঐশি, জিসানুর জাহিন সুচী, নবীন তরফদার, রোমেল প্রমুখ। পরে মহরত উদ্বোধন করা হয়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।