বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক জেল-হাজতে

টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থান মসজিদ দারুস সুন্নাহ মাদ্রাসার এক ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে শিক্ষক মো. হাফিজুল ইসলামকে(৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (২১ আগস্ট) দুপুরে টাঙ্গাইলের সিনিয়র অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সদর থানা আমলী) আদালতে হাজির করলে বিচারক মুনিরা সুলতানা জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেল-হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

গ্রেফতারকৃত মো. হাফিজুল সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বেলটিয়া গ্রামের ময়দান আলীর ছেলে। মামলা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দেলদুয়ার উপজেলার দেউলী ইউনিয়নের আগদেউলী গ্রামের জনৈক ব্যক্তি তার ছেলেকে (১০) টাঙ্গাইল কেন্দ্রীয় গোরস্থান মসজিদ দারুস সুন্নাহ মাদ্রাসার আবাসিকে রেখে পড়ালেখা করার জন্য ৮ মাস আগে ভর্তি করেন।

গত ২৩ মে থেকে ছেলেটিকে বিভিন্ন সময় শিক্ষক মো. হাফিজুল ইসলাম মারপিট সহ নানা ভয়-ভীতি দেখিয়ে প্রায় রাতেই বলাৎকার করত। ভয়ে শিশুটি মাদ্রাসা থেকে কয়েক দফায় পালিয়ে যায়। গত ২৯ জুলাই সন্ধ্যার দিকে পুনরায় শিশুটি মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়ি চলে যায় এবং কান্নাকাটি করতে থাকে।

এক পর্যায়ে শিশুটি তার মাকে বলে, ‘খুন করার হুমকি দিয়ে মাদ্রাসার হুজুর হাফিজুল প্রায় রাতেই বলাৎকার করত, সে লজ্জায় ওই মাদ্রাসায় পড়ালেখা করবেনা’। বলাৎকারের শিকার শিশুটি জানায়, এ ঘটনা মাদ্রাসায় তার সহপাঠী কয়েক ছাত্র জানতে পেরে মাঝে-মধ্যে টিককারী ও ভৎর্তসনা করত।

শিশুটির বাবা ও মামলার বাদী জানান, মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) তিনি টাঙ্গাইল মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ ওই দিন সন্ধ্যায় শিক্ষক হাফিজুল ইসলামকে মাদ্রাসা থেকে গ্রেফতার করেছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মুহা. মনির আহমেদ জানান, অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েয়েছে। আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরন করেছে। এবং বলাৎকারের শিকার ঐ ছাত্রটিকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।