বাগেরহাটে স্ত্রী হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা

বাগেরহাটের মোল্লাহাটে স্বামীর পিটুনিতে সুমাইয়া আক্তার নিরমা নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। এ ঘটনার পর নিহতের স্বামী ইমরান বিশ্বাস গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুর বারোটার দিকে পুলিশ মোল্লাহাট উপজেলার কোদালিয়া ইউনিয়নের সরোসপুর গ্রাম থেকে ওই দম্পতির লাশ উদ্ধার করেছে।

মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ স ম ভায়রুল আনাম বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় ইমরান বিশ্বাস পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রী সুমাইয়া আক্তারকে মারধর করেন। এতে সুমাইয়া অসুস্থ্য হয়ে পড়লে রাতেই তাকে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যান ইমরান। পরে চিকিৎসকরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। এতে ইমরান তাকে খুলনায় না নিয়ে বাড়িতে ফেরার পথে সুমাইয়া মারা যান।স্ত্রীর মৃত্যুর পর বৃহস্পতিবার সকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে রশিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেন।

সাত মাস আগে মোল্লাহাট উপজেলার কোদালিয়া ইউনিয়নের সরোসপুর গ্রামের জাফর বিশ্বাসের দিনমজুর ছেলে ইমরানের সঙ্গে একই গ্রামের আবু বক্কর শেখের মেয়ে সুমাইয়া আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো। নিহত গৃহবধূর গলায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে বলে ওসি জানিযেছেন।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।