বিয়ে করতে এসে জজ আটক

”ময়মনসিংহের ভালুকায় বিয়ে করতে এসে এক ভুয়া সহকারি জজ আটক হয়েছেন। শুক্রবার(১৯এপ্রিল) রাতে উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের পাড়াগাঁও পাঁচপাই এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।”

আটককৃত ব্যক্তি গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার বেড়ার চালা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে রাশেদুল ইসলাম ওরফে সোহাগ।

থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শিরির চালা গ্রামের পাঁচপাই এলাকার সাইদুর রহমান রতনের মেয়ে রাবেয়া আক্তার শিফার(১৮) সঙ্গে সোহাগের বিয়ের বিষয়ে আলোচনা হয়। ওই সময় সোহাগ নিজেকে সাতক্ষীরার সহকারী জজ বলে পরিচয় দেন। পরে শুক্রবার বিকেলে সোহাগ মেয়েটি দেখতে তাদের বাড়িতে যান। এর পর মেয়েটির পরিবার সোহাগের ব্যাপারে আরও তথ্য নিয়ে জানতে পারেন তিনি সহকারি জজ নন। এর আগেও প্রতারণার অভিযোগে গত বছরের ৪ ডিসেম্বর গাজীপুরের কাপাসিয়া থানায়(ধারা১৭০/৪২০) একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলায়ও তিনি বেশ কিছু দিন কারাগারে ছিলেন।পরে মেয়েটির পরিবারের সঙ্গে সোহাগের প্রতারণার ওই বিষয়টি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে জানানো হয়। চেয়ারম্যান তাকে মেয়ের বাড়িতে আটকে রেখে বিষয়টি ভালুকা মডেল থানা পুলিশকে জানান। পরে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ সেখান থেকে রাতের বেলা সোহাগকে আটক করেন।

ভালুকা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, সোহাগ একজন মিথ্যাবাদী বড় ধরণের প্রতারক। আটকের পর পুলিশ বাদী হয়ে তার নামে মামলা দিয়েছে। একই ধরণের অভিযোগে তাঁর নামে আগেও কাপাসিয়া থানায় মামলা রয়েছে। সে একেক সময় একেক রকম তথ্য দিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নেয়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।