সিড্ষ্টোর-সখিপুর সড়ক

ভালুকায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

ময়ময়নসিংহের ভালুকার সিড্ষ্টোর-সখিপুর সড়কের পাড়াগাঁও লাউতি খালের তলা ভাঙ্গা সেতুর উপর দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছে ২উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ।

স্থানীয় প্রশাসন দায় সাড়া সতর্কীকরণ সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দিয়ে নিজেদের দায়িত্ব শেষ করলেও শিল্পখ্যাত ভালুকার কর্মচঞ্চল মানুষের কর্মস্থলে যোগ দেয়া, শিল্প ও কৃষিপণ্য আমদানী-রপ্তানী কাজে, নিয়োজিত হতে জীবনের ঝুকি নিয়ে পথ চলছে কর্মমূখর মানুষ ।এতে যেকোন সময় জরার্জীন সেতুটি ভেঙ্গে ঘটতে পারে বড় ধরনের প্রাণহানীর ঘটনা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ময়মনসিংহের ভালুকার সিড্ষ্টোর-সখিপুর জনবহুল ব্যস্ততম সড়কের হবিরবাড়ীর পাড়াগাঁও লাউতি খালের সেতুটিন মাঝ খানে ভেঙ্গে বড় আকারে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে,আর পুরো সেতুজুরে বইছে ফাটল আর ফাটলের চিহ্ন ফলে যে কোন মুহুতে ফাটা অংশগুলো ভেঙ্গে পড়তে পারে খালে। আর এতে বড় ধরনের হানীর শংকা রয়েছে পোষাকশ্রমিকরা।

বছর খানেক আগে ভালুকা উপজেলা সড়ক ও জন পথ বিভাগ ভারী যানবাহন চলাচল অযোগ্য ঘোষণা করে পথচারী এবং ক্ষুদ্র যান চলাচল সচল রাখতে সাময়িক ভাবে সেতুটির ভাঙ্গা অংশ ষ্টিলের-পাত ও মাটি দিয়ে ভরাট করে চলাচল সচল রেখে ভারী যান বাহন চলাচল নিষেধ করেন।


কিন্তু উল্লেক্ষিত দুটি উপজেলাবাসীর সেতুবন্ধনের যোগাযোগের একমাত্র প্রধান ওই সড়কের সেতুর উপর দি্েয়ই প্রতিনিদিন কর্মবান্ধব মানুষ জীবিকার তাগিদে কর্মস্থলে যোগ দেয়া কিংবা উৎপাদিত কৃষিপণ্য বাজাত করনের বিকল্প কোন সড়ক না থাকায় বাধ্য হয়েই জীবনের বুঝি নিয়ে যানবাহনের যাত্রী হয়ে চলাচল করতে হচ্ছে তাদের।


পারাপারের অনেক সময় ভাঙ্গা সেতুয় আটকে পড়ে যানবাহন ফলে দীর্ঘ বিড়ম্বনাও পোহাতে হয় ভুক্তভোগীদের তাদের দাবী এ বিড়ম্বনা ও দূর্ভোগ দূর করতে সরকারের আশু পদক্ষেপ গ্রহন জরুরী।

স্থানীয়দের এ দূর্ভোগ দূরীকরনের সরকারী উদ্যোগ আছে কিনা তা জানতে ভালুকা উপজেলা প্রকৌশলী ফরিদুল ইসলামের অফিসে গেলে তাকে অফিসে পাওয়া যায়নি। পরে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি এ ব্যাপারে মিডিয়ায় কথা বলতে রাজি হয়নি

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।