পরিবারের দাবী

রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় শিক্ষককে হত্যা

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষক এবং দেউপুর মাস্টার হ্যাচারির পরিচালক আনিসুর রহমান তুলা হত্যা কোন স্বাভাবিক হত্যা নয়। এটা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বা কোন চালে হত্যাটি করা হয়েছে বলে দাবী করছেন মৃত আনিসুর রহমান তুলার পরিবার।
তারা পুলিশের তদন্তের উপর নির্ভর করছেন। ঘটনার পরপরই পরিবারের পক্ষ থেকে অজ্ঞাতদের আসামী করে কালিহাতী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী মুছাম্মৎ শাহীনা। বর্তমানে মামলাটি টাঙ্গাইল ডিবি পুলিশ তদন্ত করছে। এ হত্যাকান্ডের দীর্ঘ এক মাস পার হলেও কোন রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারেনি পুলিশ।
এ ব্যাপারে নিহত আনিসুর রহমান তুলার ভাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার লিয়াকত আলী জানান, আমার ভাইয়ের মৃত্যু কোন স্বাভাবিক মৃত্যু নয়। আমার মনে হয় রাজনৈতিক হিংসাত্মক মনোভাবই হচ্ছে এ হত্যার কারণ। আমি টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে প্রচার-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছি। অনেক মানুষের কাছ থেকে প্রত্যাশাও পাচ্ছি। হয়তো প্রতিপক্ষরা আমাকে দূর্বল করে দেয়ার জন্যই আমার ভাইকে হত্যা করেছে। আমার ভাইয়ের কোন শত্রু ছিল না।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা টাঙ্গাইল ডিবি (উত্তর) অফিসার ইনচার্জ আবু ওবায়দা খান জানান, মামলার বিষয়টি নিয়ে আমরা বিভিন্নভাবে বিভিন্নজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছি। এ পর্যন্ত তেমন কোন তথ্য পাইনি। তবে তদন্ত কাজ অব্যাহত আছে।
উল্লেখ্য, গত (২৭ জুন) আনিসুর রহমান তুলা নিখোঁজ হয়। পরের দিন (২৮ জুন) সন্ধ্যায় তার বাড়ির পাশে নিজ পুকুরে হাত-পা ও শরীরে বস্তাভর্তি ইট বাঁধা অবস্থায় লাশ পাওয়া যায়। নিহত আনিসুর রহমান তুলা উপজেলার সল্লা ইউনিয়নের দেউপুর গ্রামের মৃত. আব্দুস ছাত্তার মাস্টারের ছেলে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।