শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে কোচিং বাণিজ্য করলে কঠোর ব্যবস্থা ; শিক্ষামন্ত্রী

যে সমস্ত শিক্ষক শ্রেনী কক্ষে সময় না দিয়ে শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে কোচিং বাণিজ্য করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।গতকাল বুধবার সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর এস.কে পাইলট মডেল সরকারি বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দিপু মনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তবে কোচিং সেন্টারের ভিন্ন ভিন্ন ধরন থাকায় তা বিবেচনায় নিয়ে কাজ করা হবে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষক সমিতির ব্যানারে যারা পাঠ্য বইয়ের বাইরে গাইড বা অন্যান্য বই শিক্ষার্থীদের কিনতে বাধ্য করছেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও যত্রতত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠার ফলে শিক্ষার মান ব্যহত হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার ক্ষেত্রে নীতিমালা করবে সরকার।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, দেশের বিশাল জনগোষ্ঠীকে মানবসম্পদে রুপান্তরের ক্ষেত্রে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই । তাই কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থায় বিশেষ নজর দিবে সরকার। ইতোমধ্যে এ সেক্টরে শিক্ষার্থীর হার শতকরা ২০ শতাংশে উন্নীত করা সম্ভব হয়েছে। সামনে এই হার আরও বাড়ানোর জন্য সরকার বিশেষ ভাবে মনোযোগী রয়েছে।

এ সফরকালে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইলে’র জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, স্থানীয় সাংসদ একাব্বর হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল মালেক, মেয়র সাহাদাৎ হোসেন সুমন, মির্জাপুর থানার ভারপ্রার্প্ত কর্মকর্তা একেএম মিজানুল হক ও শীর্ষ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নের্তৃবৃন্দ।

এর পূর্বে সকালে মির্জাপুর পৌঁছে উপজেলা পরিষদ চত্বরের “মুক্তির মঞ্চে” বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন তিনি। এরপরই আসেন মির্জাপুর এস.কে পাইলট মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে। সবশেষে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি যোগ দেন ভারতেস্বরী হোমসের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।