কারাগারে বাড়তি সুবিধা না দেয়ায়

সংবাদের পাতায় ডেপুটি জেলার ও জামাদারের নাম

প্রতীকী ছবি

নাটোর জেলা কারাগারে গত কয়েক মাস আগে জালটাকার মামলা নিয়ে আসা রাজশাহী জেলার দূর্গাপুর উপজেলার সুকানদীঘি ইউনিয়নের ইব্রাহিমের ছেলে রেজাউল করিম (৪০)কে কারাগারের ভেতরে বারতি সুবিধা না দেয়াই তার ছোট ভাই ইমদাদুল হক ইমদাদ রাজশাহী থেকে প্রকাশিত “রাজশাহীর আলো” দৈনিক পত্রিকায় নাটোর জেলা কারাগারের ডেপুটি জেলার তোফায়েল আহম্মেদ ও সুবেদারের দায়িত্বে থাকা জামাদার নজরুলের বিরুদ্ধে মনগড়া সংবাদ প্রকাশ করছে বলে নাটোর ও রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারা কর্তৃপক্ষ অভিযোগ তুলেছে।

তারা অভিযোগ করে বলেন, সাংবাদিক ইমদাদুল হক ইমদাদ রাজশাহী থেকে প্রকাশিত “রাজশাহীর আলো” পত্রিকার বার্তা সম্পাদক হওয়াতে নাটোর জেলা কারাগারে গত কয়েক মাস আগে জালটাকার মামলা নিয়ে আসা তার ভাই রেজাউল করিম (৪০)কে কারাগারের ভেতরে বারতি সুবিধা না দেয়াই ইমদাদ এ মনগড়া সংবাদ পরিবেশন করছেন। যা সাংবাদিকদের হেও পতিপন্ন করছে । শুধু এ ঘটনাই নয় এর আগে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে রেজাউল করিম ও তার ছোটভাই ইমদাদ একাধিক মামলা নিয়ে জেল খেটেছেন। সে সময়ও তারা জামিনে বেরিয়ে কারা কর্তৃপক্ষের নামে এমন মনগড়া সংবাদ প্রকাশ করেছিলো। তারা বলেন ইমদাদের মতো কেউ যদি সাংবাদিক মহলে থাকে তাহলে পুরো সাংবাদিক মহল অপমানিত/লাঞ্চিত হবে। সাধারণ মানুষ সাংবাদিকদের অবিশ্বাস করবে। অবিশ্বাস করবে প্রচারিত সংবাদকে। তাই এদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে আনার দাবি করেন তারা।

রাজশাহীর স্থানীয় সাংবাদিক ও সূধিমহলের সাথে কথা বলে জানা যায়, কখনো ভ্রাম্মমান ম্যাজিষ্ট্রেড, পুলিশ, কখনো ডিবি পুলিশ, আবার কখনো নিজেকে সিআইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন কল কারখানা, মাদক ব্যাবসায়ীসহ বিভিন্ন বে-সরকারী প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদাবাঁজি শেষে এবার রাজশাহী থেকে প্রকাশিত “রাজশাহীর আলো”পত্রিকার বার্তা সম্পাদক পদ নিয়ে ইমদাদুল হক ইমদাদ রাজশাহী মহানগরী বাদে পুরো বিভাগ জুড়ে সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে ব্যাকমেইল ও চাঁদাবাজি করে আসছে। শুধু এখানেই শেষ নয় কারাগারের এক কারারক্ষির কাছথেকে তার আত্মীয়কে কারাগারে চাকুরি দেয়ার নামে কয়েকলাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগও আছে এই সাংবাদিক ইমদাদের নামে।

নাটোর জেলা কারাগারের ডেপুটি জেলার তোফায়েল আহম্মেদের সাথে তার নামে পত্রিকায় এমন লেখার কারন হিসেবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাজশাহীর আলো দৈনিক পত্রিকার বার্তা সম্পাদক ইমদাদুল হক ইমদাদের বড় ভাই রেজাউল করিম গত বছরের নভেম্বরের শেষের দিকে জাল টাকার মামলা নিয়ে নাটোর জেলা কারাগারে আসেন। কারাগারে আসার পর থেকে সে কারা আইন না মেনে তার ইচ্ছে মতো কারাগারের অভ্যান্তরে চলাফেরা করতে থাকেন । তাকে কারা অভ্যান্তরে এমন চলাফেরাতে বাধা ও গত বছরের ২৬শে ডিসেম্বর কারা বন্দীদের লকাপ হয়ে যাওয়ার পরে তার জামিনের কাগজ কারাগারে আসায় সেদিনে তাকে মুক্তি না দিয়ে পরের দিন জামিনে মুক্তি দেয়াতে কারাবন্দী রেজাউল করিমের বড় ভাই সাংবাদিক ইমদাদ ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ও আমার কারাগারের জামাদার নজরুলের নামে এমন মিথ্যে ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করছে।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।