পরিবেশ রক্ষায়ও পুলিশের প্রয়োজন; আইজিপি

”পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড.মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারি বিপিএম (বার) বলেছেন, পরিবেশ অধিদপ্তর সরকারের আলাদা একটি সংস্থা। তাদের নিজস্ব গতিতে তারা কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। পরিবেশ যেখানে বিঘ্নিত হয় সেখানে তারা আইন প্রয়োগ করে থাকেন।”

তিনি আরো বলেন, সত্যিকার অর্থে যদি পরিবেশ রক্ষা করতে হয় তাহলে পরিবেশ পুলিশের প্রয়োজন আছে। যত্রতত্র রাস্তার আশে পাশে যে পরিমান ইটবাটা হচ্ছে তাতে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। এক কিলোমিটার রাস্তা চলাচলের সময় ৮-১০টা ইটের ভাটা চোখে পড়ে। ইটের ভাটা গুলো যেভাবে মাটির টপসয়েল নষ্ট করে জমির উর্বরতা হারাচ্ছে তাতেও আশেপাশের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। বিশেষ করে কৃষি জমিতে কৃষি পণ্যের উৎপাদন কমে যাচ্ছে, আম গাছে আম না ধরাসহ নানা সমস্যার দেখা দিচ্ছে। তিনি শনিবার সকালে টাঙ্গাইলে ‘পুলিশ অফিসার্স মেস’ এর উদ্বোধন কালে একথা বলেন।

তিনি বলেন ইটভাটার ধোয়াতে মানুষও নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এসব সমস্যা সমাধানে পরিবেশ অধিদপ্তরের পর্যাপ্ত পরিমান জনবল আছে কিনা সেটা আমার জানা নাই। তবে এসব সমস্যার জন্য যদি পরিবেশ পুলিশ থাকতো তাহলে আমরা সঠিক দায়িত্ব পালন করতে পারতাম। দেশের প্রতিটি নদী নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ঢাকাসহ আশে পাশের নদী গুলোর পানিকে আর পানি বলা যাবে না। বুড়িগঙ্গার পানির কালার ও দুর্গন্ধের কারনে নদীর কাছে যেতে ইচ্ছে করে না। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে নদীগুলো নির্মূল থাকে। নদীর পাড় গুলো এমন থাকে যেখানে মানুষ বেড়াতে যায়। তিনি আরো বলেন, উন্নত দেশের নদীগুলো সংরক্ষণ করা হয়। আমাদের দেশেও সম্ভব। আমাদের সকলকে সচেতন হতে হবে। যারা নদীতে ময়লা আবর্জনা ফেলে তাদের নিষেধ করতে হবে। নদীকে সংস্কার করে যেভাবে ব্যবহার করা উচিত সে ভাবে ব্যবহার করলে পরিবেশ বজায় থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন বিপিএম ও টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়।

শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।